Saturday, February 4, 2023
Homeজেলার খবরশেরপুরের নকলায় জলাতঙ্ক রোগ নির্মূলের লক্ষ্যে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত

শেরপুরের নকলায় জলাতঙ্ক রোগ নির্মূলের লক্ষ্যে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত

শেরপুরের নকলা উপজেলা থেকে জলাতঙ্ক রোগ নির্মূলের লক্ষ্যে কুকুরের টিকাদান-এমডিভি (২য় রাউন্ড) কার্যক্রম-২০২১ এর অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল বুধবার (২ জুন) দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মিলনায়তনে উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অবহিতকরণ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদুর রহমান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সারোয়ার আলম তালুকদার, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বক্তব্য রাখেন।

এছাড়া উক্ত সভাতে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন গৌড়দ্বার ইউপির চেয়ারম্যান শওকত হোসেন খান মুকুল, নকলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন সরকার বাবু, এমডিভি কার্যক্রমের সুপারভাইজার মো. আরিফুর রহমান ও হায়দর আলম টিটু প্রমুখ।

এমটিপিআই আব্দুর রহিমের সঞ্চালনায় এ অবহিতকরণ সভায় উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছা. ফরিদা ইয়াসমিন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. একেএম নাজমুস সাকিব, সহকারী সার্জন ডা. তানজিনা মাহবুব, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নকলা ইউপির চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান সুজা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক উরফা ইউপির চেয়ারম্যান রেজাউল হক হীরা, গনপদ্দী ইউপির চেয়ারম্যান শামছুর রহমান আবুল, নকলা প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. মোশারফ হোসাইন, স্বাস্থ্য পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম, সেনেটারী ইন্সপেক্টর হাসান ফেরদৌস আলম, মেডিক্যাল টেকনোলজিষ্ট আবু কাউছার বিদ্যুৎ, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন স্তরের জনপ্রতিনিধি, এমডিভি কার্যক্রমের রিসোর্স পারসনগন ও বিভিন্ন এলাকার গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন: ক্লিক করুন

উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ জানান, জলাতঙ্ক একটি ভয়ংকর মরণব্যাধি, এ রোগে মৃত্যুর হার প্রায় শতভাগ। পৃথিবীতে কোথাও না কোথাও প্রতি ১০ (দশ) মিনিটে একজন এবং প্রতি বছরে প্রায় ৫৫ হাজার মানুষ জলাতঙ্ক রোগে মারা যায়। জলাতঙ্ক রোগটি মূলত কুকুরের কামড় বা আচঁড়ের মাধ্যমে এদেশে বেশি ছড়ায়। তবে বিড়াল, শিয়াল, বেজী ও বানরের কামড় বা আচঁড়ের মাধ্যমেও এ রোগ হতে পারে বলে তিনি জানান।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা জানান, কুকুরের কামড়ে আক্রান্ত রোগীর জন্য সরকারি ভাবে উপজেলা পর্যায়ে কোন টিকা বা ভ্যাক্সিন সরবরাহ করা হয়না। তাই কাউকে কুকুর বা জলাতঙ্ক ছড়ায় এমন কোন প্রাণি কামড় দিলে দ্রুত জেলা বা বিভাগীয় কোন হাসপাতাল থেকে জলাতঙ্ক রোগের ভ্যাক্সিন নিতে পরামর্শ দেন তিনি।

ইউটিউব: শেরপুর সংবাদ

শেরপুরের সকল খবর পেতে শেরপুর সংবাদের সাথেই থাকুন

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular